সোনারগাঁয়ে পল্লী বিদ্যুতের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

সোনারগাঁ প্রতিনিধি : সোনারগাঁয়ের বাংলাবাজারে পল্লী বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার বন্ধ ও মিথ্যা মামলার দাবীতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। বুধবার সকাল ১০ টায় বাংলাবাজারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলার সর্বত্র আগামী কয়েকদিনের মধ্যে স্থাপনকৃত সকল প্রিপেইড মিটার সরিয়ে না নিলে এবং নতুন কোন প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হলে বক্তারা বৃহত্তম কর্মসূচীর ঘোষণা দেওয়া হবে বলে হুশিয়ারী দেন। পল্লী বিদ্যুতের এই প্রিপেইড মিটারকে রাক্ষুসে আক্ষা দিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশে বাংলাবাজারসহ আশেপাশের এলাকার রাজনীতিবিদ, সুশীল সমাজ সহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ অংশগ্রহন করেন।
মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারী এলাকাবাসী বলেন, জনগনের স্বার্থ বিবেচনায় নিয়ে সরকারের উচিৎ প্রিপেইড মিটার বন্ধ করে দেওয়া। তাদের যে বিদ্যুৎ বিল আগে আসতো প্রিপেইড মিটার স্থাপনের পর তা বেড়ে দ্বিগুনেরও বেশী দাড়িয়েছে। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা ও ছোট বড় সকল শ্রেণী পেশার মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যা আয় করি তার অর্ধেক যদি বিদ্যুৎ বিলই দিতে হয় তাহলে স্ত্রী-ছেলে-মেয়ে নিয়ে আমাদের জীবন ধারণ করা অসম্ভব হয়ে যাবে।
গত সোমবার সকালে পল্লী বিদ্যুতের লোকজন সনমান্দি চরলাল এলাকার জোড়পূর্বক প্রি-পেইড মিটার লাগানো শুরু করে। এতে এলাকাবাসী সবাই মিলে আমরা বাধাঁ প্রদান করি। এসময় পল্লী বিদ্যুতের লোকজন পুলিশের ভয় দেখিয়ে আমাদের বাড়িতে মিটার লাগানো শুরু করে। এনিয়ে এলাকাবাসীর সাথে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজনের কথা কাটাকাটি হয় এর জের ধরে মঙ্গলবার বিকালে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজন আমাদের এলাকার ১১ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। পরে পুলিশ শাখোয়াত নামের এক গ্রাহককে গ্রেপ্তার করে কোর্টে চালাল করে। পল্লী বিদ্যুতের দায়ের করা মিথ্যা মামলায় আমরা সনমান্দি বাসী তীব্র প্রতিবাদ জানাই সাথে শাখোয়াতকে নিঃশর্ত মুক্তি দাবিসহ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাই।
পল্লী বিদ্যুৎ যদি অবিলম্বে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করে তাহলে সোনারগাঁয়ের সকল শ্রেণী পেশার মানুষদের নিয়ে ঢাকা- চট্টগ্রাম মহাসরক বন্ধ করে দেয়া হবে।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: