সোনারগাঁয়ে ডিস ব্যবসাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলা,ভাংচুর, আহত-৩

স্টাফ রিপোর্টার(নিউজ বন্দর ২৪) : সোনারগাঁও উপজেলার মল্লিকেরপাড়ায় ডিসের ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে নিতে সন্ত্রাসীরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে জোহরা বেগম (৫০) ও তার দুই ছেলে নূর আলম (২৪) এবং আলম (২৮) কে আহত করা সহ একটি মোটর সাইকেল ও বাড়ীতে ভাংচুর চালিয়ে প্রায় ১ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধণ করা হয়েছে মর্মে ঘটনার দিনই আহত জহুরা বেগম বাদী হয়ে টিপরদী এলাকার সৈয়দ রহমানের ছেলে শফি উদ্দিন, সেলিম মিয়ার ছেলে রিয়াদ হোসেন রনি, মোসলেমের ছেলে নুর আলম, সাহাবুদ্দিনের ছেলে কালাম, কানাইনগর এলাকার মোতালেবের ছেলে হাসমত, নাঈম পিতাঃ অজ্ঞাত ও আলাউদ্দিনের ছেলে রতনকে বিবাদী করে সোনারগাঁও থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। লিখিত অভিযোগ ও ভূক্তভোগীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বিবাদীরা খারাপ প্রকৃতির লোক এবং তাদের অত্যাচারে এলাকার নিরিহ জনগণ অতীষ্ঠ। জোহরা বেগমের ছেলে নূর আলম এবং একই এলাকার সাইফুল ও সাঈদ মিলে উক্ত এলাকায় ডিসের ব্যবসা করে থাকে। বুধবার ঘটনার দিন দুপুর ১ঃ৩০ মিনিটে নিকটস্থ বাজারে সন্ত্রাসীরা নূর আলমকে মারধর করে এবং দুপুর ২টায় বিবাদীরা দেশীয় অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বেআইনীভাবে নুর আলমদের বাসায় প্রবেশ করে তাকে খোজাখুজি করতে থাকে। নূর আলম বাসায় না থাকায় ও তার বড় ভাই আলম ও মা জোহরা বেগম এর প্রতিবাদ জানালে তারা আলম ও জোহরা বেগমকে উপর্যপুরি আঘাত করে ও মেরে আহত করে এবং উঠোনে থাকা নূর আলমের ব্যবহৃত সুজুকি জিক্সার মোটর সাইকেল ও পুরাতন বাড়ীর বাউন্ডারীর টিনের বেড়া দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র দিয়ে ভাংচুর করে প্রায় ১ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধণ করে। তখন তাদের ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এলে তাদেরকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে বিবাদী সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। স্থানীয় সন্ত্রাসীরা নূর আলমকে হত্যার উদ্দেশ্যে রিয়াদ হোসেন রনিকে ভাড়া করে এনেছে বলে জানান বাদী পক্ষ। রিয়াদ হোসেন রনি চৈতী কম্পোজিট গার্মেন্টস কর্তৃক দায়েরকৃত ডাকাতি মামলার প্রধান আসামী, মেঘনা গ্রুপ এলাকায় রায়হান হত্যা মামলার আসামী সহ সোনারগাঁও থানায় তার নামে অনেকগুলো মামলা রয়েছে। সে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িত এবং রনি উক্ত এলাকায় অপরাধের রামরাজত্ব গড়তে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে বাদীপক্ষ জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে সোনারগাঁও থানার ওসি মনিরুজ্জামান মনির জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত হচ্ছে। অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: