সোনারগাঁয়ে ট্রাকে ডাকাতি,দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি


সোনারগাঁ(নিউজ বন্দর ২৪) : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা টোলপ্লাজা এলাকায় ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে এক ট্রাক মালিকের ছোট ভাই নিহত হওয়ার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত আন্তঃজেলা ডাকাত সর্দার কবির প্রধান ওরফে চাপাতি ফারুক ঘটনার দায় স্বীকার করে নারায়ণগঞ্জ আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেছে। ডাকাত সর্দার ডাকাতি করতে গিয়ে ছুরিকাঘাত করে এক ব্যক্তিকে হত্যা করার কথা আদালতে স্বীকার করেছে। নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্র্যাট মাহামুদুল মহসীন এর আদালতে গত বুধবার বিকেলে হাজির করা হলে সে এ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত ২১এপ্রিল রোববার রাতে চট্টগ্রাম থেকে ড্রাম ভর্তি বিটুমিন বোঝাই ট্রাক পারুল এন্টারপ্রাইজ (ঢাকা-মেট্টো-ট-১১-০১৮৯) চুয়াডাঙ্গার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। পথে সোমবার ভোরে মেঘনা টোল প্লাজা এলাকায় ট্রাকটি পৌছানোর পর সেটিতে একদল ডাকাত হানা দেয়। এসময় ডাকাতদল ওই ট্রাকের চালককে পিটিয়ে আহত করে ও ট্রাকের মালিকের ভাইকে ছুরিকাঘাত করে নগদ টাকা পয়সা, মোবাইল ফোন ও বিভিন্ন মালামাল লুট করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় ডাকাতদের ছুরিকাঘাতে ট্রাকের মালিকের ভাই তোতা মিয়ার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ট্রাকের মালিক জাহাঙ্গীর আলম বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
ডাকাতদের হানা দেওয়া ট্রাকের মালিক জাহাঙ্গীর মিয়া এজাহারে উল্লেখ করেন, গত ২১ এপ্রিল রোববার রাতে চট্টগ্রাম থেকে মাল বোঝাই করে চুয়াডাঙ্গার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। সোমবার ভোর ৫টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপজেলার মেঘনা টোলপ্লাজা এলাকায় ট্রাকটি পৌছানোর পর সেটি থামিয়ে প্রাকৃতির ডাকে সাড়া দিতে তার ছোট ভাই তোতা মিয়া নিচে নামে। এসময় কয়েকজন ডাকাত দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ট্রাক ড্রাইভার আসাদুজ্জামানের উপর হামলা চালায়। এসময় তার কাছ থেকে মোবাইল, ব্যবহৃত কাপড় ও ২৫ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। এসময় তার ছোট ভাই তোতামিয়া (৩৬) ডাকাতদের বাধা দিতে এগিয়ে আসলে ডাকাতদল তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে সে অতিরিক্ত রক্তক্ষরনে মারা যায়। খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় ট্রাক মালিক জাহাঙ্গীর মিয়া বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামান মনিরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার আষাঢ়ীয়ারচর এলাকায় অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সর্দার কবির প্রধান ওরফে চাপাতি ফারুককে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত চাপাতি ফারুক এসময় পুলিশের কাছে সোমবার ভোরে ডাকাতি করার কথা স্বীকার করে। নিহত তোতা মিয়ার বাড়ি সাতক্ষীরা জেলার সদর থানা এলাকায়। সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ জানান, আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সর্দার কবির প্রধান ওরফে চাপাতি ফারুককে গত বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্র্যাট মাহামুদুল মহসীন এর আদালতে হাজির করা হয়। এসময় সে ডাকাতি করতে গিয়ে ছুরিকাঘাত করে তোতা মিয়াকে হত্যা করার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেয়। এই ঘটনায় তার সঙ্গে আরও যে কয়েকজন ডাকাত জড়িত ছিল তাদের নামও সে আদালতকে অবহিত করে।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: