সিদ্ধিরগঞ্জে ইভটিজিংয়ে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ,আহত-১০

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সিদ্ধিরগঞ্জে ইভটিজিংয়ে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে পানি আক্তার গ্রুপ ও ছোট মিজান গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা দাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে ১০জন রক্তাক্ত জখম হয়েছে। আহতদের খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

অহতরা হলেন, রাসেল আহমেদ (৩৬)জসিম (২১) ইসমাইল (২১) ইউসুফ (২৩) রাকিব (১৯) সাইদুল (২২) শুভ (২০)। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার নাসিক ৬নং ওয়ার্ড সুমিলপাড়া রেললাইন এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে উভয় গ্রুপ পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানা মামলা দায়েলের প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে মিজান গ্রুপ।

এদিকে এ ঘটনায়কে কেন্দ্র করে মুসিলপাড়া, এসও ,আইলপাড়া এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করেছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে।

জানাগেছে,আদমজী সুমিলপাড়া এলাকা স্থানীয় মেয়ে ও গামেন্টর্সর মেয়েদের প্রতিদিনই বিভিন্ন বাক্য ব্যববহার করে পারি আক্তার গ্রুপের টুন্ডা মিজান। এ ঘটনায় মঙ্গলবার মিজান গ্রুপ বাধা দিলে পানি আক্তারসহ ৫০/৬০ জন দেশী অস্ত্র চাপাটি, রানদা, লোহারট, লাটিসোটা নিয়ে মিজান গ্রুপের উপর হামলা চালায়। এসময় মিজান গ্রুপ বাধা দিলে উভয় গ্রুপরে মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।খবর পয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মীর শাহীন পারভেজ এর নেতৃত্বে পুলিশ গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এদিকে এলাকাবাসী জানিয়ে পানি আক্তার এলাকার ত্রাস। তার বিরোদ্ধে কয়েকটি মামলা রয়েছে। সে স্থানীয় এক কাউন্সিলের লোক। সে চলটি বছরেরর ৩ জানুয়ারি এ এলাকায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের অফিসে অগ্নিসংযোগ করেছে। সে সময় জাতীয় পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছবি আগুনে পুড়ে যায়। এ পানি আক্তারের এাসের রাজত্ব কায়েম করেছে এলাকায়। এ সন্ত্রাসীর হাত থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষা করা জন্য জেলা পুলিশ সুপারের হস্থ্যক্ষেপ কামনা করেছে। এবিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি জানান, আমি ঘটনাস্থালে এসেছি। বিষয়টি যেনে পরে জানাচ্ছি।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: