রূপগঞ্জে গৃহবধুকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা,জখম

রুপগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের লোকজন শারমীন আক্তার নামের এক গৃহবধুকে শারিরিক নির্যাতন চালিয়ে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, ওই গৃহবধুকে শ্লীলতাহানি করে হামলা, ভাংচুর করে স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা লুটে নেয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় সাকিম মিয়া নামের একজনকে কুপিয়ে জখম করা হয়। গত বুধবার মধ্যে রাতে উপজেলার বালূ দক্ষিণপাড়া এলাকায় ঘটে এ ঘটনা।

গৃহবধু শারমীন আক্তার ওই এলাকা তাজুল ইসলামের স্ত্রী।

গৃহবধু শারমীন আক্তার জানান, গত বুধবার রাতে তুচ্ছ বিষয়াদি নিয়ে একই এলাকার তোতা মিয়ার ছেলে সেলিম গালমন্দ শুরু করে শারমীন আক্তারকে। এ সময় শারমীন আক্তার প্রতিবাদ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সেলিমসহ মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে আব্দুল কাদিরসহ ১০ থেকে ১২ জনের একদল লাঠিসোটা দিয়ে শারমীন আক্তারের বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর চালায়। এসময় শারমীনের সমস্ত শরীরে পিটিয়ে জখম করে। এক পর্যায়ে সেলিম বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায় শারমীনকে। পরে ওই গৃহবধুর গলায় থাকা একটি স্বর্ণের চেইন ও নগদ ৪৫ হাজার টাকা লুটে নেয়। শুধু তাই নয়, ঘরে থাকা এলইডি টিভিসহ আসবাবপত্র ভাংচুর করে। পরে শারমীন আক্তারের চাচা অলি আহাম্মেদের বাড়িঘরও ভাংচুর করে হামলাকারীরা।

এ ব্যপারে থানা পুলিশ বা মামলা মোকদ্দমা করলে শারমীন আক্তারসহ তার স্বামী তাজুল ইসলামকে প্রাণে মেরে ফেলবে বলেও হুমকি দেয়। এসময় একই এলাকার মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে সাকিম মিয়া প্রতিবাদ করেন। হামলাকারীরা সাকিমকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। আহত শারমীন আক্তার ও সাকিমকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যপারে অভিযুক্ত সেলিম মিয়ার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে বার বার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: