যৌন হয়রানীর ঘটনায় ৩ শিক্ষক বরখাস্ত,কমিটি বাতিল

স্টাফ রিপোর্টারঃ নারায়ণগঞ্জ বন্দরে নাগিনা জোহা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষকসহ ৩ শিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে। ৩ শিক্ষক বরখাস্ত ও কমিটি বাতিলের বিষয়টি নিশ্চিত করেন বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) পিন্টু বেপারী।

বরখাস্তকৃত শিক্ষকরা হলেন ইংরেজি শিক্ষক আল-আমিন,হিসাব বিজ্ঞান শিক্ষক কাউসার ও গনিত শিক্ষক রতন চন্দ্র সূত্রধর।

তথ্যমতে,নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সেলিম ওসমানের নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত বন্দরের নাগিনা জোহা উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক আল-আমিন বেশ কিছুদিন পূর্বে নবম শেনীর এক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানী করার সময় অন্যান্য শিক্ষার্থী দেখে ফেলে। পরে ঘটনা গোপন রাখার জন্য শিক্ষার্থীদের প্রহার করা হয়। গত সোমবার ২২জুলাই এক স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানী করায় উক্ত বিদ্যালয়ের বাইরে গিয়ে হাতে প্লেকার্ড নিয়ে শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানব বন্ধণ করে। এ ঘটনাটি বিভিন্ন সংবাদ পত্রে প্রকাশিত হলে বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদ তাৎক্ষনিক ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান,বন্দর ইউএনও ও থানা শিক্ষা অফিসারকে অবগত করেন। পরে তারা ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। বুধবার ২৪ জুলাই সকালে মদনপুর ইউনিয়নের বাগদোবাড়িয়া নাগিনা জোহা উচ্চ বিদ্যালয়ে সাংসদ সেলিম ওসমান নিজে এসে বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান এমএ রশিদ,বন্দর ইউএনও পিন্টু বেপারী ও থানা শিক্ষা অফিসার(মাধ্যমিক) আ.ক.ম নুরুল আমিনসহ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদ সাথে নিয়ে আলোচনায় বসেন। আলোচনা শেষে সাংসদ সেলিম ওসমান অভিযুক্ত ৩ শিক্ষককে বরখাস্তসহ উক্ত প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদ বাতিল ঘোষনা করেন বলে নিশ্চিৎ করেন বন্দর ইউজেলা নির্বাহী অফিসার পিন্টু বেপারী।

এ ব্যাপারে বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) পিন্টু বেপারী বলেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা সেলিম ওসমানের নিজস্ব অর্থায়ণে বাগদোবাড়িয়া গ্রামে নির্মিত নাগিনা জোহা উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক আল-আমিন এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির চেষ্টা করে। অভিযুক্ত শিক্ষকের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করে শিক্ষার্থীরা। তাই সাংসদ অভিযুক্ত ওই শিক্ষক ও তাকে সহযোগীতা করায় আরো ৩শিক্ষককে বরখাস্তসহ ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদ বাতিল ঘোষনা করেন।

এ সময় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন,বন্দর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ রশীদ ও নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির আহব্বায়ক আবুল জাহের,বন্দর থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আ.ক.ম নুরুল আমিন ও মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গাজী এমএ সালাম।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: