বন্দরে চিপস খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ৬ বছরের শিশু ধর্ষণ


বন্দরে চিপস খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিবিজোড়া ব্রাক স্কুলের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করেছে লম্পট অটোচালক আক্তার হোসেন। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে বন্দর ইউনিয়নস্থ বিবিজোড়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ব্যাপারে মঙ্গলবার দুপুরে বন্দর থানায় শিশুটির মা আসমা বেগম বাদী হয়ে অটোচালক আক্তার হোসেনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

জানাগেছে,গত বৃহস্পতিবার দুপুরে বন্দর ইউনিয়নস্থ বিবিজোড়া এলাকায় মৃত আবুল হোসেনের মেয়ে ব্রাক স্কুলের শিক্ষার্থী(৬) নিজ বাড়ীর আঙ্গিনায় খেলা করছিল। একই এলাকার ছিদ্দিক মিয়ার লম্পট ছেলে অটোচালক আক্তার হোসেন হীণ উদ্দেশ্যে আবুল হোসেনের শিশু সন্তানকে চিপস খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে দূর থেকে ডেকে নিয়ে তার বসতঘরে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে ও কাউকে কিছু না বলার জন্য ভয় দেখায়। পরে শিশুটি বাড়িতে এসে গোপনাঙ্গে ব্যাথা অনুভব করলে তার মা আসমা বেগমের কাছে পুরো ঘটনাটি খুলে বলে। শিশুটির মা গত রবিবার ২১এপ্রিল বন্দর থানায় এসে অভিযুক্ত আক্তার হোসেনের বিরোদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে।

এলাকাবাসী জানিয়েছে,শিশুটি বয়স মাত্র ৬বছর। ব্রাক স্কুলে ১ম শ্রেনীতে পড়ে। শিশুটির পিতা আবুল হোসেনের মৃত্যুর পর পরই মাকে নিয়ে নানী বাড়িতে বসবাস করে। তার মা ইট ভাঙ্গার কাজ করে। খুবই অসহায় একটি পরিবার। পাশর্^বর্তী সুফিয়া মেম্বারের দেবর লম্পট আক্তার হোসেন শিশু মেয়েটিকে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করল। এটা কোন মানুষের কাজ হতে পারেনা। আমরা এর শাস্তি দাবি করছি।

মঙ্গলবার শিশুটির পূণরায় ব্যাথা অনুভব হলে তার স্বজনরা দ্রুত বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল পাঠায়।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: