বন্দরে অন্ধ মুক্তিযোদ্ধা সালামের সম্পত্তি দখল করার পায়তারা

বন্দরে অসহায় ও অন্ধ মুক্তিযোদ্ধার সম্পত্তি দখলে নিতে ৮০ বছরের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে স্থাপনা নির্মাণ করছে উচ্ছশৃঙ্খল হবি,ডিপটি,ইমু,সানি ও সোমাগং। অমানিবক এ ঘটনার বর্হিঃপ্রকাশ ঘটেছে থানার একরামপুর ইস্পাহানী এলাকায়। বিবাদীদের ভয়াল কবল থেকে রেহাই পেতে নিরীহ বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম মৃধা বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়,বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম মৃধা ১৯৭১ সাল হতে একজন ভূমিহীণ বৈধ লিজার হিসেবে নিন্ম তফসিল বর্ণিত সম্পত্তিতে স্ব-পরিবারে (ভোগদখলরত হিসেবে) বসবাস করে আসছেন। বিগত ১০বছর ধরে তিনি দৃষ্টিশক্তি হয়ে পড়ায় পার্শ্ববর্তী কদমরসুল বড় বাড়ী এলাকার মৃত নঈমুদ্দিন ওরফে গোপাল মিয়ার ছেলে হাবিবুর রহমান ওরফে হবি,ডিপটি,একই এলাকার মৃত ছাবিনুল হাসান ওরফে ছেিবেনর ছেলে ইমু,ছানি মেয়ে সোমা এবং স্ত্রী আলম আরা বেগম জোটবদ্ধ হয়ে দীর্ঘ দিন ধরে তার সম্পত্তি দখলের অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

এ ব্যাপারে উল্লেখিতদের বিরোদ্ধে ২০১৪ সালে বন্দর সিনিয়র সহকারি জজ আদালতে একটি দেওয়ানী মোকাদ্দমাও করা হয়েছে। বিচারাধীন ওই মামলায় আদালত বিবাদীগণকে কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা কিংবা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের চলাচলে কোন প্রকার বিঘœ সৃষ্টি না করার আদেশ দিলেও হবি,ডিপটি,ইমু,সানি ও সোমা গং আদালতের সেই নির্দেশ উপেক্ষা করে ফের রাস্তা বন্ধ করে সেখানে জোরপূর্বক স্থাপনা নির্মাণ করছে।

এ ঘটনায় বন্দর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে নির্মাণ কাজ বন্ধ করলেও বিবাদীরা নিরীহ সালাম মৃধা ও তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে ক্ষতিসাধণের হুমকি ধামকি দিয়ে বেড়াচ্ছে। বিবাদীদের অব্যাহত হুমকিতে চরম নিরাপত্তাহীণ শংকার মধ্যে দিন কাটচ্ছে অসহায় সালাম মৃধার পরিবার।

এ ব্যাপারে তিনি স্থানীয় সাংসদ বীরমুক্তিযোদ্ধা একেএম সেলিম ওসমান ও জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতন মহলের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: