ফতুল্লা থানায় শীর্ষ সন্ত্রাসী মীরু বাহিনীর বিরোদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা


ফতুল্লা ( নিউজ বন্দর ২৪) : ফতুল্লার কুতুবপুর ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মীর হোসেন মীরুর বিরোদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা হয়েছে। শনিবার (৩০ মার্চ) ফতুল্লা মডেল থানায় মীরু বাহিনীর বিরোদ্ধে হাজী মুসলিম মার্কেটের মালিক মামুন অর রশিদ এ মামলা দায়ের করেন।

আসামীরা হচ্ছে মীরু (৪০),আরিফ (৩০),শাকিল (৩০), মুরাদ (৩২), জাকির হোসেন (৪৫) ও আরো অজ্ঞাত নামা ৭/৮ জন।

হাজী মুসলিম মার্কেটের মালিক মামুন অর রশিদ “নিউজ বন্দর ২৪ডট কম”কে বলেন,পাগলা বৌ বাজার বটতলা এলাকায় আমার মালিকাধীন হাজী মুসলিম বাজার নামীয় মার্কেটের নির্মাণ কাজ প্রায় তিন মাস ধরে চলছে। এতে ১নং বিবাদী ও এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ মীরু তার বাহিনী নিয়ে নির্মাণাধীন প্রতিষ্ঠানের মালিক পক্ষকে ভীতি প্রদর্শন সহ জিম্মি করে মোটা অংকের চাঁদা আদায় করে থাকে। মীরু তার প্রতিষ্ঠান মেসার্স মীরু এন্টারপ্রাইজ হতে নির্মাণাধীন প্রতিষ্ঠানের মালিক পক্ষকে ইট,বালু ও সিমেন্ট ক্রয় করতে বাধ্য করে। সে জেলা হাজতে থাকায় আমি আমার কাজ শুরু করলেও জামিনে বের হয়ে তার বাহিনী নিয়ে ১০ থেকে ১২ দিন পূর্বে হতে আমার নিকট ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছে। আমি চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আমার মার্কেটের ম্যানেজার জলিল আহম্মেদকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি দিয়ে আসছে। আমার মার্কেট নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দেয়। ২৯ মার্চ সন্ধ্যা ৬ টায় আমার মার্কেটের নির্মাণ কাজ চলাকালীন সময়ে বিবাদীগণসহ আরো ৭/৮ জন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আমার কাছে ২০লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। আমি দিকে অস্বীকৃতি জানালে তারা আমাকে মারপিট করতে উদ্যত হয়। এ সময় আমার ম্যানেজার এগিয়ে আসলে ২নং বিবাদী তাকে লোহার রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এতে সে গুরুতর জখম হয়। এরপর হামলাকারীরা তাকে এলোপাথারিভাবে মারধর করে নীলাফুলা জখম করে। ৪নং বিবাদী আমার বুকে অস্ত্র ঠেকিয়ে টাকা দিতে বলে। প্রাণের ভয়ে আমি উঠলেও আমার বন্ধু রুবেলের পকেটে থাকা সাড়ে ৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। আর আমার নির্মাণ শ্রমিকদের বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয় ও হামলা চালিয়ে নির্মাণ সামগ্রীর ক্ষতিসাধন করে।

উল্লেখ, গত জানুয়ারীতে মীরুকে গ্রেপ্তার করে ডিবি। মীরুর বিরোদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় ১৮টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে ৪টি হত্যা, অস্ত্র আইনে ৩টি, মাদক আইনে ২টি ও চাঁদাবাজীতে ৯টি মামলা আছে।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: