ফতুল্লার মামলা তুলে নিতে বাদীকে প্রান নাশের হুমকি


ফতুল্লা(নিউজ বন্দর ২৪) : নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার সেহাচরে জায়গা দখলকে কেন্দ্র করও শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এক মহিলার আঙগুল কেটে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় (২৭ এপ্রিল) সন্ত্রাসী মোঃ হীরা (২৫),মোঃ মানিক (২২) মোঃ রতন (২০) সর্ব পিতা-আবুল বেপারী আবুল বেপারী (৫৫) নামে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা করা হয় মামলা নং-১২৩। পরের দিনই দায়েরকৃত মামলার আসামীদের মধ্যে ৩জন মানিক,রতনও আবুল বেপারী জামিনে বের হয়ে এসে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীর বাড়ি-ঘর ভেঙ্গে বড় ধরনের ক্ষতি সহ প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছে। এ বিষয়ে মমতাজা বেগমের ছেলে মোঃ আসাদুজ্জামান রনি জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে ৩০/০৪/২০১৯ইং তারিখে ফতুল্লা মডেল থানায় উল্লিখিত আসামীদের বিরুদ্ধে একটি সাধারন ডায়েরী করেন যান নং-১৬১১

উল্লেখ ফতুল্লার সেহাচর তক্কারমাঠ এলাকায় এক মহিলার আঙগুল কেটে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা। ঘটনারপর মমতাজ (৪৫) নামে ওই মধ্যবয়স্ক আহত নারীকে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসাপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণের পর এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে হামলার শিকার মমতাজ বেগম। অভিযোগে তার প্রতিবেশী আবুল বেপারী ও তার তিন ছেলে মোঃ হিরা (২৫), মোঃ মানিক (২২), এবং মোঃ রতন (২০) সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫জনকে আসামী করা হয়েছে।

অভিযোগে মমতাজ বেগম বলেন, অভিযুক্তরা আমার প্রতিবেশী হলেও তারা অত্যান্ত খারাপ ও সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। তারা আমাদের উপরোক্ত ঠিকানার বাড়ীর জায়গা দখল করার পায়তারা করে আসছিলো। আজ (২৬ এপ্রিল) আমি আমার বাড়ীর গেট সংস্কারের কাজ করাই। একই তারিখ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে অভিযুক্ত সন্ত্রাসীরা অজ্ঞাতনামা আরো ৩/৪ জন সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোকসহ ধারালো চাপাটি, রামদা, ছুরি ও লোহার রড নিয়ে বেআইনী জনতাবদ্ধে সংঘবদ্ধ হয়ে আমাদের বাসায় অনাধিকার ভাবে প্রবেশ করে। সন্ত্রাসী হিরা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে চাপাতী দ্বারা মাথা বরাবর স্বজোরে কোপ মারলে আমি জীবন রক্ষার্থে বাম হাত দিয়ে প্রতিহত করতে গেলে উক্ত কোপ আমার বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলে লেগে আঙ্গুল হাত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে অঙ্গহানী ঘটে। তার ভাই মানিকও একই কায়দায় আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো রাম দা দিয়ে কুপিয়ে আমার ডান হাতের শাহাদাত আঙ্গুলে মারাত্মক কাটা রক্তাক্ত জখম করে। অন্যান্যরা আমাকে লোহার রড দ্বারা পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর নীলা-ফুলা জখম করে। আমি মাটিতে পরে গেলে আবুল বেপারীর নির্দেশে সকলে মিলে আমার বাড়ীতে ব্যপক ভাংচুর চালায়। সংবাদ পেয়ে আমার ছেলে ঘটনাস্থলে আসলে বিবাদীরা আমার ছেলেকেও এলোপাথারী পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর নীলা-ফুলা জখম করে। আমাদের ডাক-চিৎকারে আশপাশের লোকজন আসতে থাকলে তারা হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: