এবার ‘মি টু’ আন্দোলনে মুখ খুললেন মাধুরী

দুনিয়াব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে ‘মি টু’ আন্দোলন। বলিউডে রীতিমত ঝড় তুলেছে। বেরিয়ে এসেছে অনেক নিভৃতচারী গুণী মানুষের মুখোশও। অভিনেত্রী ও নারী নির্মাতা-কলাকুশলীদের যৌন হেনস্তার দায়ে অভিযোগের কাঠগড়ায় উঠেছে নানা পাটেকারসহ অনেক নামী দামি তারকার নাম।

একে একে প্রায় জনপ্রিয় তারকারা মুখ খুলছেন ‘মি টু’ নিয়ে। শাহরুখ-সালমান ও আমির খানেরাও পরিস্কার করেছেন নিজেদের অবস্থান। পাশাপাশি কঙ্গনা-দীপিকা ও ক্যাটরিনা-প্রিয়াঙ্কার মতো তারকারাও মুখ খুলেছেন এই প্রসঙ্গে।

এবার ‘মি টু’ নিয়ে কথা বললেন বলিউডের ‘চন্দ্রমুখী’খ্যাত অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিত। তিনি বেশ হতাশা প্রকাশ করেছেন যৌন হেনস্তায় অভিযুক্তদের তালিকায় নিজের পছন্দের ও শ্রদ্ধার মানুষদের নাম দেখে।

মাধুরী খুব আহত হয়েছেন আলোকনাথ, সৌমিক সেনের মতো মানুষের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠায়। ভারতীয় গণমাধ্যম দাবি করছে মাধুরী জানিয়েছেন, এইসব ব্যক্তিদের সঙ্গে নিকট সম্পর্কই ছিল তার। কিন্তু ‘মি টু’ আন্দোলনের জেরে তাদের অজানা দিক জানার পর বেশ অস্বস্তিই হচ্ছে।

সম্প্রতি ‘মি টু’ আন্দোলন ও তাতে জড়িয়ে পড়া একসময়ের সহকর্মী আলোকনাথ এবং পরিচালক সৌমিক সেনের বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়। সেখানেই মাধুরী জানান, আলোকনাথের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে জেনে হতভম্ব হয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

‘হাম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘জামাইরাজা’সহ বহু হিট ছবিতে মাধুরীর সঙ্গে অভিনয় করেছেন আলোকনাথ। সব ক্ষেত্রেই মাধুরীর গুরুজনের ভূমিকায় দেখা গিয়েছে তাকে। তার সঙ্গে মাধুরীর কাজের সম্পর্কও ছিল রীতিমতো ভাল। সেই আলোকনাথের নামেই ‘মি টু’ অভিযোগের কথা জেনে প্রথমে বিশ্বাস করতে পারেননি মাধুরী।

ঠিক ততটাই বিস্মিত হয়েছিলেন ‘মি টু’ আন্দোলনে পরিচালক সৌমিক সেনের নাম ওঠায়। মাধুরীর সাম্প্রতিক হিট ছবি ‘গুলাব গ্যাং’-এর পরিচালক সৌমিক। মাধুরী বলেন, ‘ব্যাপারটা শকিং। কারণ প্রথমেই মনে হবে এদের আপনি চেনেন কিন্তু এভাবে চেনেন না। মনে হবে যে লোকটাকে তুমি চিনতে আর যার সম্পর্কে খবরে পড়ছ সেই দু’জন আলাদা মানুষ। এটা লজ্জার পরিচয়।’

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: