আড়াইহাজারে নবম শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণ,লম্পট লিটন গ্রেফতার


আড়াইহাজার( নিউজ বন্দর ২৪) : নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে নবম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে রাস্তা থেকে জোর করে ধরে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ ধর্ষক লিটন(২৪)কে গ্রেফতার করেছে। ১১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের প্রভাকরদী এলাকার
ধর্ষিতার পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, ১১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের প্রভাকরদী এলাকার এক দরিদ্র কাঠ মিস্ত্রর কন্যা নবম শ্রেনীর ছাত্র(১৪) রাস্তা দিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে একই এলাকার তোতা মিয়ার ছেলে লিটন মিয়া(২৪) ও মোঃ আলী মিয়ার ছেলে সাইফুল (২৫)তাকে জোর করে মুখে কাপড় চাপা দিয়ে পার্শ্ববর্তী মোবারক মিয়ার পরিত্যক্ত গরুর খামারে নিয়ে যায়। সেখানে সাইফুলের সহযোগিতায় লিটন মিয়া মেয়েটিকে ধর্ষণ করে তাকে ঘটনাস্থলে ফেলে চলে যায়। পরে মেয়ে তার বাড়িতে গিয়ে তার পিতা-মাতাকে ঘটনাটি জানালে তারা ধর্ষক লিটন ও সহযোগি সাইফুলের পিতাকে জানান। এ ঘটনায় স্থানীয় ভাবে সমাধান করে দিবে বলে একটি প্রভাবশালী মহল তালবাহানা করে। তারা ধর্ষিতাকে ২০হাজার টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি ধামাচাপার প্রস্তাব দেয় বলে ধর্ষিতার মা জানান। পরে ধর্ষিতার মা ধর্ষক লিটন ও সহযোগি সাইফুলের বিরুদ্ধে রবিবার রাতে আড়াইহাজার থানায়ধর্ষণের লিখিত অভিযোগ দিকে পুলিশ ধর্ষক লিটনকে গ্রেফতার করে।
ধর্ষিতা এ এম বদরুজ্জামান খান উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্রী বলে পুলিশ জানায়। তবে প্রভাবশালী মহলটি থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই ফাইজুর রহমানের মাধ্যমে থানায় বিচারের মাধ্যমে আপোষ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
আড়াইহাজার থানার সেকেন্ড অফিসার ফাইজুর রহমান ধর্ষক লিটনকে গ্রেফতারের কথা স্বীকার করে জানান,বিবাদীদের এক ঘন্টা সময় দেওয়া হয়েছে যদি ধর্ষিতাকে বিয়ে করে তবেই লিটনকে ছাড়া যেতে পারে।

             
             
             
             
             
             
             
             

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: