বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে ব্যর্থ হলে ষড়যন্ত্রকারীরা রক্ষা নাই–মামুন মাহমুদ


সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির উদ্যোগে ইফতার মাহফিল করা হয়েছে। শনিবার (২৫ মে) সন্ধ্যায় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের পাশে মাদানীনগর হিলটন হলে এ ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুজ্জামান মনিরের সভাপতিত্বে এবং জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদের সঞ্চালনায় বিএনপির ইফতার মাহফিলে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি এ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন, জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি খন্দকার আবু জাফর, সহ-সভাপতি এডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ^াস, মনিরুল ইসলাম রবি, মোঃ নাসির উদ্দিন, মোঃ নজরুল ইসলাম টিটু, যুগ্ম সম্পাদক মাহফুজুর রহমান হুমায়ুন, মোশাররফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাশেকুল ইসলাম রাজিব, নজরুল ইসলাম পান্না, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম, যুব বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুল হক রিপন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, প্রকাশনা সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম রিয়াজ, জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী নুরুন্নাহার বেগম, মহানগর যুবদলের সাধারন সম্পাদক মন্তাজউদ্দিন মন্তু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি, জেলা মৎসজিবী দলের আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট আনোয়ার প্রধান, জেলা বিএনপির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক শাহ আলম হিরা, সাস্থ্য ও পরিবেশ কল্যান সম্পাদক মোঃ সালাউদ্দিন মোল্লা, ক্রীড়া সম্পাদক নাদিম হাসান মিঠু, নাসিক নারী কাউন্সিলর আয়েশা আক্তার দ্বীনা, বিএনপির নেতা গাজী মনির হোসেন, সামসুদ্দিন শেখ, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবদল নেতা মোঃ শহিদুল ইসলাম, যুবদল নেতা দিদার মহসিন, বিএনপি নেতা মাহবুবুর রহমান শিপন, কামরুল হাসান শরীফ, যুবদল নেতা সোহেল রহমান, সালাউদ্দিন আহমেদ, আক্তারুজ্জামান, জেলা সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন ও রাকিবুল দেওয়ান প্রমূখ।
জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ তার বক্তব্যে বলেন, বিএনপি এমনই একটি দল যে দলকে মানুষ ভালোবেসে রাষ্টীয় ক্ষমতায় বসায়। সেই দলের একজন সদস্য হিসেবে যদি মৃত্যু বরণ করতে সেটাই আমার জন্য সম্মানের। দলের সেক্রেটারী হিসেবে নয় এই দলের একজন সাধারন কর্মী হিসেবে মৃত্যু বরণ করতে চাই। কেন্দ্র থেকে যে সকল কর্মসূচী দেওয়া হয়, সেই সকল কর্মসূচীতে আমরাই কিন্তু থাকি। আপনারা যারা থাকেন না। আপনারা যারা ষড়যন্ত্রের মধ্যে রয়েছেন। আপনারা যারা কেন্দ্রীয় কর্মসূচীতে অংশগ্রহন করেন না, তাদের কিন্তু তৃনমূল নেতাকর্মীরা ঠিকিই চেনে রাখে। কাজেই লম্বা লম্বা বক্তব্য দিয়ে ষড়যন্ত্র করে আমাদের মধ্যে যে ঐক্য, সেই ঐক্য বিনষ্ট করতে পারবেন না। তৃনমূল কিন্তু আপনাদেরই ধরবে। যদি আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমরা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত ব্যার্থ হই তাহলে ষড়যন্ত্রকারীরা কিন্তু রেহাই পাবেন না।

জেলা বিএনপির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুজ্জামান মনির সভাপতির বক্তব্যে বলেন, যেই নেতার নেতৃত্বে আমি তার হাত ধরে যুবদলে যুক্ত হইছিলাম। যে মানুষটি এই দেশের মানুষের জন্য যুদ্ধ করেছেন, এই দেশের মানুষকে গনতন্ত্র ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য নিরন্তর পরিশ্রম করেছেন, এই দেশের কৃষক শ্রমিক মেহনতি মানুষের মুক্তির জন্য শেষ পর্যন্ত নিজের জীবনটিও দিয়েছেন। এমন একটি নিঃস্বার্থ মানুষ, যে নিজের জীবন জন্য কোন কিছু তোয়াক্কা করেন নাই। তিনি দেশের মানুষের সুখ শান্তির কথা ভেবে কাজ করেছেন। সেই মানুষটি নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন সেই মানুষটিই আমাদের নেতা। তিনি স্বার্থপর ছিলেন না। আজকে এই দলের সংকট হয়েছে কিছু স্বার্থন্বেশী লোকের কারনে এই সংকট সৃষ্টি হয়েছে।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: