বন্দরে ব্যবসায়ী রবিউল হোসেন মিন্টুর নামে অপপ্রচার

বন্দরে নবীগঞ্জ ইউনিয়ণ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী রবিউল হোসেন মিন্টুর নামে অপপ্রচারসহ গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে একটি কু-চক্রীমহল। ঈর্ষাম্বিত হয়ে কয়েকদিন যাবৎ প্রতিষ্ঠিত এ ব্যবসায়ীকে মাদকের অর্থ যোগানদাতা নামে অপপ্রচার করে বেরাচ্ছে। গত সোমবার ১৭জুন বিকেলে গনমাধ্যমে এক বিবৃতিতে ব্যবসায়ী রবিউল হোসেন মিন্টু তার বিরোদ্ধে অপপ্রচারের কথা প্রকাশ করেন।

তিনি আক্ষেপ প্রকাশ করে জানিয়েছেন,আমি রবিউল হোসেন মিন্টু একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। প্রথম শ্রেনীর একজন কন্ট্রাক্টর। আমি দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সহিত এমআই সিমেন্ট ফ্যক্টরীর ঢাকেশ্বরী প্রজেক্ট,মেসার্স সিনথিয়া এন্টার প্রাইজ,মেসার্স সিনথিয়া ও সাদিয়া এন্টার প্রাইজসহ বিভিন্ন ব্যবসার সাথে কাজ করে আসছি। পাশাপাশি আমি নবীগঞ্জ ইউনিয়ণ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও ২৫নং ওয়ার্ড যুবলীগের রাজনীতির সাথে বিভিন্ন কর্মকান্ডে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। কিছুদিন যাবৎ ঈর্ষাম্বিত হয়ে আমাকে হেয়প্রতিপন্ন করতে একটি অসাধু মহল ও বিশেষ পেশার অর্থলোভী ব্যাক্তিরা উঠে পড়ে লেগেছে। তারা আমাকে জড়িয়ে বিভিন্নভাবে মাদকের অর্থ যোগানদাতা বলে মানুষের কাছে অপপ্রচার করছে। আমি এর তীব্র নিন্দাসহ প্রতিবাদ জানাই।

এ ব্যাপারে  বিভিন্ন ব্যাক্তিদের সাথে আলাপ করে জানা যায়,রবিউল হোসেন মিন্টু একজন ব্যবসায়ী ও মহানগর আ’লীগের সহসভাপতি নুরুল ইসলাম চৌধুরীর ভাগিনা। তার বিরোদ্ধে অপপ্রচার সত্যিই দুঃখ জনক। কতিপয় লোকজন তার সুনামকে ক্ষুন্ন করতে এই মিশনে নেমেছে। আমরা এই অপপ্রচারের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

এ ব্যাপারে কামতাল তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ আনোয়ার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে আলাপকালে তিনি জানান,লক্ষণখোলা এলাকার রবিউল হোসেন মিন্টু ব্যবসা করে জানি। তাকে আমরা কখনো কোন অবৈধ কিছুর সাথে জড়িত কিনা তা জানিনা।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: