নাসিকের একটু অবহেলায় হতে পারে বড় দূর্ঘটনা!

মহানগর(নিউজ বন্দর ২৪) :  শহরের প্রানকেন্দ্র চাষাঢ়া শহীদ মিনারের পশ্চিম পাশে শহীদ মিনারের একটি পানির টাংকির ঢাকনাটি ভেঙ্গে পড়ায় এখন সেটা আগত মানুষের জন্য হুমকীর কারন হয়ে দাড়িয়েছে। আর এ জন্য নাসিকের দ্বায়িত্ব অবহেলাকেই দায়ী করছেন শহীদ মিনারের আগত দুরদুরান্ত দর্শনার্থীরা।
সরেজমিনে দেখা যায়, প্রায় ৩ বছর পুর্বে শহীদ মিনারের পশ্চিম পাশে নির্মিত ফোয়ারার পেছনেই রয়েছে একটি পানির টাংকি। একটি পাতলা শীট দিয়ে প্রায় ৩ ফুট আকৃতির ঢাকনা দেয়া হয় সেই টাংকির উপরে। প্রতিদিন দুর-দুরান্ত থেকে আগত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষ একটি স্বস্তি নিতে শহীদ মিনারে কিছু সময় অবস্থান নেই এবং আলাপ-চারিতায় ব্যস্ত সময় কাটায়। বেশ কয়েকদিন যাবত সেই টাংকির ঢাকনাটি ভেঙ্গে গেলেও সেই দিকে নজর দেয়নি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কর্তবাবুরা। অথচ প্রতিদিন শহীদ মিনার ঝাড়– দেয়া হচ্ছে নাসিকের পক্ষে। কিন্তু ঢাকনাবিহীন সেই টাংকিতে যদি পা ফসঁকে কেউ পড়েন তাহলে হাত-পা ভাঙ্গাসহ শরীরের ব্যাপক ক্ষতি হতে পারে সাধারন মানুষের। নাসিক নয় শহীদ মিনারের পাশে ক্ষুদে দোকানীরা সংকেত হিসেবে একটি গাছের অংশ সেখানে দিলেও দিনের আলোতে দেখা গেলেও রাতের আলোতে তা দেখা সম্ভব নয়। জাকারিয়া নামে সরকারী তোলারাম কলেজের এক শিক্ষার্থী বলেন,প্রতিদিন দিনই কলেজ সময় শেষে একটু শহীদ মিনারে আসি বন্ধুদের নিয়ে। অনেকদিন যাবত দেখছি ঢাকনাবিহীন এ পানির টাংকিটি। কিন্তু তা মেরামতের কোন ব্যবস্থা নিতে দেখছিনা। কে কখন পড়ে দিয়ে দূর্ঘটনার সম্মুখীন হয় তা বলতে পারছিনা। এছাড়াও অনেক রাত পর্যন্ত শহীদ মিনাওে বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষ বসে আড্ডা দেয় তা অনেকেই জানেন। তাই আমি বলবো নাসিক কর্তৃপক্ষ অতিদ্রুত টাংকির ঢাকনাটুকু মেরামতের ব্যবস্থা নিবেন।
শুধু কলেজ শিক্ষা জাকারিয়া নয় শহীদ মিনারে আগত সকলেই দাবী করেন অতিদ্রুত এখানকার পানির টাংকির ঢাকনাটুকু নাসিক কর্তৃপক্ষ মেরামত করে সাধারন মানুষকে বড় ধরনের দূর্ঘটনার কবল থেকে রক্ষা করবেন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: