আড়াইহাজারে ৪ পুলিশ সদস্যকে গণপিটুনী দিয়ে আটক,ক্ষমা চেয়ে মুক্ত

প্রতিনিধি আড়াইহাজার(নিউজ বন্দর ২৪) : নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে জোর করে এক ব্যক্তির পিকাপ নিয়ে আসাকে কেন্দ্র করে পুলিশের সাথে এলাকাবাসীর সংঘর্ষে পুলিশের এক উপপরিদর্শক সহ ৪ পুলিশ সদস্য ও এক ব্যবসায়ী আহত হয়েছে। জনতা পুলিশ সদস্যদের গণপিটুনী দিয়ে আটক করে রাখে। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যানের মধ্যস্থতায় জনতার কাছে ক্ষমা চেয়ে রক্ষা পায় পুলিশ।
এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে,২৭ এপ্রিল শনিবার রাত পোনে আটটার দিকে উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের লস্করদী এলাকায় আড়াইহাজার থানা পুলিশের উপপরিদর্শক নাজমুল হোসেনের নেতৃত্বে সাদা পোষাকে ৪ পুলিশ সদস্য ঐ এলাকার আমানউল্যাহ নামে এক ব্যক্তির একটি পিকাপ জোর করে নিয়ে আসতে চায়। ঐ সময় পিকাপের মালিক পুলিশকে কারন জিজ্ঞাসা করলে তারা মোটা অংকের টাকা দাবী করে। পিকাপের মালিক এ ঘটনা ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন খোকার ম্যানেজার টিপু মিয়াকে জানায়। পরে টিপু ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকে পিকাপ নিয়ে যাওয়ার ঘটনা জানতে চাইলে পুলিশের সাথে তর্কবিতর্ক হয় টিপুর। পরে এসআই নাজমুল সহ চার পুলিশ সদস্য টিপুকে হেন্ডকাপ ও লাটি দিয়ে পিটিয়ে বাম কান ও মাথা ফাটিয়ে দেয়। এ ঘটনা স্থানীয় লোকজন জানতে পেলে এলাকার চারপাচশ লোক জড়ো হয়ে এসআই নাজমুল সহ চার পুলিশ সদস্যকে আটক করে গণপিটুনী দিয়ে ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন খোকার বাড়িতে আটক করে রাখে। খবর পেয়ে আড়াইহাজার থানার ওসি আক্তার হোসেনের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য গিয়ে আটককৃত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করতে ব্যর্থ হন। পরে ওসি স্থানীয় চেয়ারম্যান লাক মিয়া ও ৪নং ্ওয়ার্ড সদস্য খোকা মেম্বারের সহযোগিতায় স্থানীয় লোকজনদের কাছে ক্ষমা চেয়ে পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে নিয়ে আসে।
আহত টিপু মিয়া জানান,পুলিশকে কারন জিজ্ঞাসা করতেই তারা তাকে পিটাতে থাকে। টিপু মিয়া লস্করদী এলাকার আঃ সামাদের ছেলে।
আহত টিপু মিয়াকে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
ব্রাহ্মন্দী ইউপি চেয়ারম্যান লাক মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পুলিশ নির্দোষ টিপুকে বেদম পিটানোর কারনে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের উপর চড়াও হয় এবং তাদের আটকে রাখে।
আড়াইহাজার থানার ওসি আক্তার হোসেন জানান, পিকাপভ্যান নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে জগড়া হয়। এ সময় টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তবে পুলিশকে গণপিটুনী দেওয়ার কথা অস্বীকার করেন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: